মোবাইলের কভার কিনতে গিয়ে প্রাণ হারালো যুবক, যাওয়া হলো না কক্সবাজার!

সুমন কুমার নিতাই, নিজস্ব প্রতিবেদক: বগুড়ার নন্দীগ্রামে কক্সবাজার ভ্রমণে যাবার উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে বের হয়ে মোটরসাইকেল দূর্ঘটনায় মো: রিমন (১৮) নামের এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া আরোহী মো: রাকিব (১৯) নামে আরো একজনকে গুরুতর অবস্থায় বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে বলে জানা গেছে।

নিহত রিমন উপজেলার ৫নং ভাটগ্রাম ইউনিয়নের নিনগ্রাম স্কুল পাড়ার তালেব আলীর ছেলে। গুরুতর আহত রাকিব হোসেন একই গ্রামের মুনসুর আলীর ছেলে। নিহত রিমন নন্দীগ্রামের কুন্দারহাট বাসস্ট্যান্ডের পার্শ্বে একটি মোটরসাইকেল ওয়ার্কশপে মেকানিক হিসেবে কাজ করতো।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নিনগ্রাম স্কুলপাড়া থেকে ৪০ জন সদস্য আজ বুধবার (২০সেপ্টেম্বর) কক্সবাজার ভ্রমণের উদ্দেশ্য বাড়ি থেকে বের হয়ে আসে কুন্দারহাট বাসস্ট্যান্ডে। সেখানে বাস পার্কিং করে সবাই এক সঙ্গে জমায়েত হচ্ছিলো, এর এক পর্যায়ে রিমন ও রাকিব কুন্দারহাট থেকে ওয়াং-১২৫ সিসি মোটরসাইকেল যোগে নন্দীগ্রাম যাচ্ছিলো মোবাইল ফোনের ব্যাক কভার কেনার জন্য। পথিমধ্যে বগুড়া-নাটোর মহাসড়কের নন্দীগ্রাম পল্লী বিদ্যুতের সাব-স্টেশনের সামনে পৌছালে সন্ধ্যা সাড়ে ছয় টায় অজ্ঞাত যানবাহনের ধাক্কায় মহাসড়কেই মোটরসাইকলটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তায় ছিটকে পড়ে যায়।

পরে দুর্ঘটনার খবর পেয়ে নন্দীগ্রাম ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সদস্যরা ওই ২ জনকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক রিমন হোসেনকে মৃত ঘোষণা করেন।

কুন্দারহাট হাইওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্বাস আলী জানান, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা গুরুতর আহত অবস্থায় ২জনকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক রিমন হোসেনকে মৃত ঘোষণা করেন। তিনি আরো জানান, এই সড়ক দুর্ঘটনার বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এ ধরণের আরো কিছু খবর